Home » , » খুচরা বাজারে পেঁয়াজের দাম কমেছেঃ আবার বাড়ছে পাইকারি দর

খুচরা বাজারে পেঁয়াজের দাম কমেছেঃ আবার বাড়ছে পাইকারি দর

Written By Unknown on Monday, December 27, 2010 | 1:34 PM

পাইকারি বাজারে কমার পর রাজধানীর খুচরা বাজারেও কমেছে পেঁয়াজের দাম। খুচরা বাজারে সর্বনিম্ন ৪০ টাকা বেজি দরে বিক্রি হচ্ছে দেশীয় নতুন পেঁয়াজ। তবে গত শনিবারের তুলনায় গতকাল পাইকারি বাজারে পেঁয়াজের দাম কিছুটা বেড়েছে। চলতি সপ্তাহে খুচরা বাজারে দেশীয় নতুন পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে সর্বোচ্চ ৫৫ টাকা দরে।


গতকাল কারওয়ান বাজার ও বঙ্গবাজার-সংলগ্ন আনন্দবাজারে নতুন পেঁয়াজ ৪০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। তবে কারওয়ান বাজারে গতকাল বড় আকারের পেঁয়াজের দাম ছিল ৪৫ থেকে ৪৮ টাকা কেজি। কারওয়ান বাজারে পুরনো দেশীয় পেঁয়াজ ৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হতে দেখা যায়। বিক্রেতারা জানান, এর দাম কেজিপ্রতি ১০ থেকে ১৫ টাকা কমেছে।
খুচরা বাজারে কমলেও পাইকারি বাজারে আবার কিছুটা বেড়েছে পেঁয়াজের দাম। গত বৃহস্পতিবার রাজধানীর সবচেয়ে বড় পেঁয়াজের আড়ত শ্যামবাজারে পেঁয়াজ বিক্রি হয় ৪০ টাকা কেজি দরে। শুক্রবার সন্ধ্যায় তা কমে এসেছিল কেজিপ্রতি ২৬ টাকায়। কিন্তু শনিবার তা আবার ৩৪-৩৫ টাকায় উঠে যায়। গতকাল খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, প্রতি কেজি পেঁয়াজ ৩৯ থেকে ৪৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।
আনন্দবাজারের ১২৯ নম্বর দোকানের বিক্রেতা শামীম আহমেদ জানান, তিনি ৫৫ টাকা দরে পেঁয়াজ কিনে এনেছিলেন। কিন্তু বাজার কমে যাওয়ায় তিনি ৪০ টাকা দরে বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছেন। তিনি বলেন, 'কেজিতে ১৫ টাকা লোকসান দিতে হচ্ছে। আমরা ভাবতেও পারিনি দাম এত বাড়বে, আবার কমে যাবে।'
শ্যামবাজারের ঢাকা বাণিজ্যালয়ের বিক্রেতা আবদুর রহিম কালের কণ্ঠকে জানান, আড়তে ক্রেতার সংখ্যা বেড়েছে, কিন্তু পেঁয়াজের সরবরাহ কিছুটা কমে গেছে। এ কারণে দাম কিছুটা বেড়েছে। তিনি বলেন, 'কাঁচামালের দামের কোনো ঠিক নেই। এই বাড়ে, আবার কমে যায়। তবে কয়েক দিনের মধ্যে দাম আবার কমবে। কারণ বাড়তি দামের আশায় কৃষক এখন আবার ক্ষেত থেকে পেঁয়াজ তোলা শুরু করবে।'
গত ২০ ডিসেম্বর অনির্দিষ্টকালের জন্য পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ ঘোষণা করে ভারত। ভারতের রপ্তানি বন্ধের ঘোষণার কারণে দেশের বাজারে পেঁয়াজের দাম কেজিপ্রতি দুদিনে ২০ টাকা বেড়ে যায়। ৩৫ টাকা কেজির দেশীয় পেঁয়াজ কয়েক দিনে ৫৫ টাকা ও ৫৫ টাকার ভারতীয় পেঁয়াজ ৮০ টাকা হয়ে যায়।
প্রসঙ্গত বাংলাদেশের বর্তমানে পেঁয়াজের বার্ষিক চাহিদা ১৬ লাখ টন। কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের তথ্যানুযায়ী, প্রতিবছর সোয়া লাখ থেকে দেড় লাখ হেক্টর জমিতে পেঁয়াজের চাষ হয়ে থাকে। এতে উৎপাদিত হয় প্রায় ৯ লাখ টন পিঁয়াজ। বাকি চাহিদা আমদানি করেই মেটাতে হয়। আমদানির সিংহভাগ হয় ভারত থেকে।

0 comments:

Post a Comment

 
Support : Dhumketo ধূমকেতু | NewsCtg.Com | KUTUBDIA @ কুতুবদিয়া | eBlog
Copyright © 2013. News 2 Blog 24 - All Rights Reserved
Template Created by Nejam Kutubi Published by Darianagar Publications
Proudly powered by Dhumketo ধূমকেতু